ফ্রান্সের পর জার্মানিতে হামলা, নিহত আফগান আততায়ী
বার্লিনের জানালা, মঙ্গলবার, জুলাই ১৯, ২০১৬



সোমবার রাতে জার্মানির বাভেরিয়া রাজ্যে এক ট্রেনের মধ্যে হামলায় পাঁচ ব্যক্তি আহত হয়েছে৷ আততায়ী এক আফগান শরণার্থী৷ কট্টর ইসলামপন্থি ভাবধারায় উদ্বুদ্ধ হয়ে সে এই হামলা চালিয়েছে কিনা, তা স্পষ্ট নয়৷> ডিডাব্লিউ



ফ্রান্সের নিস শহরের সন্ত্রাসী হামলার আতঙ্ক এখনো কাটেনি৷ জার্মানির বাভেরিয়া রাজ্যে এক হামলা সেই আশঙ্কা আরও বাড়িয়ে দিল৷ এবারও একজন আততায়ী৷



ট্রাক নয়, হাতে কুড়াল ও ছুরি নিয়ে ট্রেনের মধ্যে সে যাত্রীদের উপর নির্বিচারে হামলা চালালো৷ তার ফলে পাঁচজন আহত হয়েছে৷ আহতদের মধ্যে চারজন হংকং-এর একটি পরিবারের সদস্য৷ হামলার সময়ে ট্রেনের সেই কামরায় প্রায় ২৫ জন যাত্রী ছিলেন৷ প্রত্যক্ষদর্শীদের বয়ান অনুযায়ী হামলার পর কামরা রক্তে ভেসে যাচ্ছিল৷








তবে এবার আততায়ী বেশি সময় পায়নি৷ চেন টেনে পালানোর সময় পুলিশ তাকে ধরার চেষ্টা করে৷ পুলিশের উপর হামলা চালালে পুলিশেরই গুলিতে তার মৃত্যু হয়৷ অন্য একটি ঘটনার জের ধরে বিশেষ কমান্ডো বাহিনী কাছেই উপস্থিত ছিল৷



 






সোমবার রাতে বাভেরিয়ার ভ্যুয়র্ত্সবুর্গ শহরের কাছে এক ট্রেনে যে ব্যক্তি হামলা চালিয়েছে, তার বয়স মাত্র ১৭৷ আফগানিস্তান থেকে শরণার্থী হিসেবে সে একাই জার্মানিতে এসেছিল৷ হামলার কারণ এখনো জানা যায়নি৷ তবে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সূত্র অনুযায়ী, হামলার ঠিক আগে সে ‘আল্লাহু আকবর' বলেছিল বলে খবর পাওয়া গেছে৷ তাই নিস-এর হামলার পর সন্দেহের তালিকার শীর্ষে রয়েছে কট্টর ইসলামপন্থি ভাবধারা৷ তদন্তে এই বিষয়টিকে খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷ তার ঘরে হাতে-আঁকা আইএস পতাকা পাওয়া গেছে বলে জানা গেছে৷



 



আততায়ী সম্পর্কে এখনো বিশেষ কিছু জানা যায়নি৷ অপ্রাপ্তবয়স্ক শরণার্থী হিসেবে সে বাবা-মা ছাড়াই জার্মানিতে এসেছিল৷ ভ্যুয়র্ত্সবুর্গ শহরের কাছেই সে থাকতো৷ সর্বশেষ খবর অনুযায়ী এক পরিবার তাকে আশ্রয় দিয়েছিল৷ হামলার পর সে কোথায় পালানোর পরিকল্পনা করেছিল, তাও স্পষ্ট নয়৷



উল্লেখ্য, মাস দুয়েক আগে বাভেরিয়া রাজ্যের রাজধানী মিউনিখ শহরের কাছে এক আততায়ী ট্রেনের মধ্যে ছুরি চালিয়ে এক জনকে হত্যা করে৷ সেই হামলায় ৩ জন গুরুতর আহত হয়৷ তবে সেই আততায়ী মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল বলে জানা যায়৷



এসবি/ডিজি (ডিপিএ, এএফপি)




Link