"বার্লিনালে" - ৬৭ তম বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব
Mir Monaz Haque, বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৭


"বার্লিনালে" - ৬৭ তম বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের পর্দা খুলেছে ৯ই ফেব্রুয়ারী, চলবে ১৯ ফেব্রুয়ারী অব্দি৷ ১০ দিনের এই মনোজ্ঞ উৎসবে পৃথিবীর সব সেরা নামী দামী চিত্রতারকাদের সমাগম হয এই অনুষ্ঠানে৷ সারা পৃথিবীর চলচিত্র উৎসবের মাঝে বার্লিনের এই "বার্লিনালে" একটি ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠান কারণ এটি চলচিত্র নির্মাতা কুশলীব ও দর্শকের এক মিলন মেলা; যে কারণে ভেনিস, কান বা মস্কো এই বার্লিনের সাথে পার্থক্য তা হলো বিপুল দর্শক সমাগম, গত বছর ১০ দিনের এই ফেস্টিভ্যালে দর্শক এসেসিলেন প্রায় ২ লক্ষ্য। এবারও আয়োজক প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী পরিচালক ডিটার কোসলিক আশা করছেন এবার দুই লক্ষর মতো দর্শক হবে, কারণ বার্লিনালের কলরব বেড়েছে, প্রদর্শিত ছবির সংখ্যা বেড়েছে।
বাংলার সেরা পরিচালক সত্যজিত রায় ১৯৭৩ সনে তাঁর বিখ্যাত ছায়াছবি অশনির সংকেত এর জন্যে স্বর্ণ ভল্লুক জিতে নেয় এই "বার্লিনালে" থেকেই , সত্যজিত রায় এর সাথে বাংলাদেশের ববিতা ও সেই সৌভাগ্যের সামিল হয়৷ এরপরে ভারত উপমহাদেশের অনেক নামকরা পরিচলোকরা যেমন মৃনাল সেন, ঋত্তিক ঘটক, ইঅশ চোপরা, সারুক খান ও এই বার্লিনালে তে যোগ দেয়৷
এবার বার্লিনালের - ৬৭ তম বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের প্রতিযোগিতা পুনাঙ্গ প্রোগ্রামে এখন সর্বমোট ১৮ টি ছায়াছবি মূল প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে গোল্ডেন আর সিলভার ভল্লুক পাওয়ার লড়াই এ বাছাই করা হয়েছে৷ ছায়াছবিগুলি আসছে সারা পৃথিবীর বিভিন্ন দেশগুলি থেকে: অস্ট্রিয়া, রোমামিয়া, জার্মানী, ফ্রান্স, চীন, পর্তুগাল, হাঙ্গেরি, পোল্যান্ড, গণতান্ত্রিক কোরিয়া, রোমানিয়া, রাশিয়ান ফেডারেশন, স্পেন, ফিনল্যাণ্ড এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে৷ এবার সারা পৃথিবী মূল পর্বপ্রতিযোগিতা অনুষ্ঠান ছাড়াও পানোরামা, ফোরাম, রেত্রস্পেচ্তিভ, প্রামান্য চলচিত্র, শর্টফিল্ম, কিডস প্রোগ্রাম ও ইউরোপিয়ান ফিল্ম মার্কেট এ ১৫০০ টি ছায়াছবি মাত্র এই ১০ দিনের প্রোগ্রাম এ পরিবেশিত হবে৷ ইতিমধ্যেই দুই হাজারএর বেশি সিনেমা বেক্তিত্ব বার্লিনে এসে পৌছেছে, এছাড়া ও আড়াই হাজার সাংবাদিক এর সমাগম বার্লিন শহরকে ইউরোপের স্কৃতির কেন্দ্রবিন্দু তে পরিনত করেছে৷
৬৭ তম বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সব এ স্প্যানিশ অভিনেত্রী পেনেলোপি ক্রুজ, ফরাসি অভিনেত্রী ক্যাথেরীন ডেনোভ, নারী মনজয় জয় করা তারকা রবার্ট প্যাটিনসন তার ছায়াছবি "দি লষ্ট সিটি অফ জেড" নিয়ে। বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের ৭ সদস্য বিশিষ্ট জুরি কমিটির প্রেসিডেন্ট হিসেবে থাকবেন নেদারল্যান্ডস এর খ্যাতিমান পরিচালক পল ফারহোভেন।
ভাইসরয় এর প্রাসাদ: ভারত ও ব্রিটেন এর কো-প্রোডাকশন - মূল অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করছে
সময়টা ছিল ১৯৪৭, ভারতে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসন প্রায় শেষ হয়ে আসছে. কুইন ভিক্টোরিয়া প্রপৌত্র লর্ড মাউন্টব্যাটেন দিল্লি আসেন খুব স্বল্প সময়ের জন্য, মাত্র ছয় মাসের জন্য তার স্ত্রী ও কন্যা কে সঙ্ নিয়ে শেষ ভাইসরয় হিসেবে এবং ব্রিটিশরাজ থেকে ভারতবর্ষের স্বাধীনতা শেষ কর্মপদ্ধতিকে পর্যবেক্ষণ করার জন্যে, খুব শীঘ্রই, গৃহযুদ্ধ আর হিন্দু মুসলমান ও শিখদের সহিংসতা ছড়িয়ে পরে যা ভাইসরয় রাজপ্রাসাদের কর্মরত ৫ শত কর্মচারীদেরকেও প্রভাবিত করে। ঠিক এরই মধ্যেই ভাইসরয় প্রাসদে কর্মরত এক হিন্দু কর্মচারী জিৎ ও এক মুসলিম সুন্দরী আলিয়া র প্রেম কাহিনী নিয়ে এই ছায়াছবি ভাইসরয় এর প্রাসাদ।
পরিচালক : গুরিন্দর চাধা
ভারতীয় বাবার কন্যা হিসেবে ১৯৬০ সালে কেনিয়ায় জন্মগ্রহণকারী লন্ডনে কৈশোর জীবন ও লেখাপড়া, যেখানে তিনি প্রথমে বিবিসির সংবাদ প্রতিবেদক হিসেবে কাজ করেন। এরপর তিনি ব্রিটিশ ফিল্ম ইনস্টিটিউট, বিবিসি ও চ্যানেল ৪ থেকে পুরস্কারপ্রাপ্ত বেশ কিছু ডকুমেন্টারি ছবি পরিচালনা করেন। তিনি তার স্পেশাল ফিল্ম আত্মপ্রকাশ "ভাইঝি অন দ্যা বিচ" এর জন্য অসংখ্য পুরস্কার লাভ করেন। এর মাঝে আরো বেশ কিছু চলচিত্র নির্মাণ করে ২০১৬ তে "ভাইসরয় এর প্রাসাদ"


Link